ধর্ষণ মামলার বিচার শেষ হয়নি ৪বছরেও,এখনো আঁতকে উঠে ফুলগাজীর সেই স্কুল ছাত্রী

Image

ধর্ষণ মামলার বিচার শেষ হয়নি ৪বছরেও,এখনো আঁতকে উঠে ফুলগাজীর সেই স্কুল ছাত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা: ফুলগাজী উপজেলার আমজাদহাট ইউনিয়নে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ মামলার ৪বছর পর স্বাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। মামলা তুলে নিতে প্রাণনাশের অব্যাহত হুমকি দিচ্ছে আসামীরা। নির্যাতিতা ওই ছাত্রী ছাগলনাইয়া উপজেলার একটি কলেজে অধ্যয়নরত। ওই ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ছাগলনাইয়া উপজেলার পশ্চিম দেবপুর গ্রামের মৃত ছবু মিয়ার ছেলে আবুল খায়ের ছোটন ওরফে ছোট্ট মিয়ার সাথে ফুলগাজীর জাফর ইমাম উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে বিয়ের জন্য প্রস্তাব দেয় তার ভগ্নিপতি আবুল বশর। তিনি ফুলগাজী উপজেলার ফেনাপুষ্কনি এলাকার জমিদার মিয়ার ছেলে। স্কুল ছাত্রীর পরিবার বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছোটন ও বশর ২০১৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর বার্ষিক পরীক্ষা শেষে দুপুরে বাড়ী ফেরার পথে স্কুলের সামনে থেকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে শেকল দিয়ে হাত-পা বেঁধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালায়। তার শরীরে বিষাক্ত ইনজেকশন পুশ করে ও ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে পালাক্রমে তারা ধর্ষণ করে। ঘটনার দু’দিন পর ফুলগাজী থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়। এ অপহরণের ঘটনায় তখন ফেনী সহ বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও দেশব্যাপী প্রতিবাদের ঝড় উঠে। ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য শিরীন আক্তারের নেতৃত্বে ঢাকায়ও মানববন্ধন হয়। পুলিশের তৎপরতায় ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণ নিয়ে ২০১৬ সালের ২ জানুয়ারী ১৮ দিন পর মহিপালে রেখে পালিয়ে যায় ছোটন ও আবুল বশর। পরে তাকে উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ঘটনায় ২০১৬ সালের ৫ জানুয়ারী আবুল খায়ের ছোটন, তার ভগ্নিপতি আবুল বশর ও বোন হাসিনা আক্তারকে আসামী করে স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ফুলাগাজী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলার তদন্তে বশরের ভাবী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের উত্তর কাশিমপুর গ্রামের শাহ আলমের স্ত্রী নার্গিস আক্তার (৪০) এর সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলে। পুলিশ চারজনকে অভিযুক্ত করে ২০১৬ সালে ২৫ মার্চ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেনের আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কমকর্তা সাবেক ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ। আদালত একই বছরের ১২এপ্রিল আভিযোগপত্র গ্রহণ করে। তদন্ত কর্মকর্তা আলোচিত এ মামলায় আবুল বশরকে গ্রেফতার করলেও ১নং অভিযুক্ত আসামী আবুল খায়ের ছোটন ও তার বোন হাসিনা আক্তারকে গ্রেফতার করতে পারেনি। বর্তমানে আসামীরা সবাই উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছে। মামলাটিতে তদন্ত কর্মকর্তা সাবেক ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ছাড়াও ফেনী জেনারেল হাসপাতালের তৎকালীন মেডিকেল অফিসার ডা. সৈয়দ মো: আরিফুল ইসলাম ও জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. কাজী মো: আলমসহ ১২ জনকে সাক্ষী করা হয়। আদালত সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। বাদী, তার মেয়ে ও এক নিকটাত্মীয় ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য প্রদান করেন। আগামী ৩ মার্চ পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য্য রয়েছে। এদিকে স্থানীয়রা জানান, আবুল বশর ভারতে মানবপাচার ও গরুপাচারের সাথে জড়িত। টাকার প্রভাবে একের পর এক অন্যায় করেও ধামাচাপা দেয়। এতে করে অনেকে ন্যয় বিচার থেকে বঞ্ছিত হন। নির্যাতিতার বোন জানান, অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ ও ইনজেকশনের ফলে তার বোনের স্মৃতিশক্তি হারিয়ে গেছে। ঘটনার ৪ বছর হতে চললেও স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেনি। তার শরীরের আঘাতের চিহ্নগুলো দেখে এখনও আঁতকে উঠে। ঘটনার পর তার মা দুইবার স্ট্রোক করেছে। দরিদ্র কৃষক পিতাও চিকিৎসার খরচ চালাতে অক্ষম হয়ে পড়েছেন। তিনি আরও জানান, আবুল বশর তাদেরকে দেখে নেয়া এমনকি প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। ফেনী জর্জ কোর্টের পিপি হাফেজ আহম্মদ জানান, এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। ইতোমধ্যে ৩ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছে।
Advertisement

ফেইসবুক লাইক
অন্যান্য পত্রিকা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ :
Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজী উপজেলার আনন্দপুর ইউনিয়নের বন্দুয়ায় গোলাম বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজী উপজেলার আনন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে মাদক, বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজী উপজেলার দরবারপুর ইউনিয়নের দক্ষিন বরইয়া বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজীতে পুকুরে ডুবে আঞ্জুমান আরা নামে (২) এক শিশুর বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজীতে আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে সোহাগ (৩০)নামের ধর্ষণ বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা: ফুলগাজীতে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে এক স্কুল ছাত্রী বিস্তারিত

Image

ফুলগাজী সংবাদদাতা : ফেনী শহরের পাগলা মিয়া সড়কের নিজ বাসার সামনে থেকে অপহরণ বিস্তারিত

Image

নিজস্ব সংবাদদাতা: ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার আনন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বিস্তারিত

প্রধান সম্পাদক : এস এম ইউসুফ আলী
নির্বাহী সম্পাদক : মোঃ ওমর ফারুক
বার্তা সম্পাদক : এম ডি ফখরুল ইসলাম
তাসলিমা আক্তার লিমু কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।

হাজী শাহ আলম টাওয়ার (৪র্থ তলা), শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার সড়ক, ফেনী।

মোবাইল: ০১৮১২-১৫৯৯৬১, ০১৯১৯-১৫৯৯৬১, ০১৭১১ ৩৪১২৩৫

ই-মেইল : eusufpress@gmail.com, newsfenireport.com

Developed By: SBIT

© fenireport.com Site All Rights Reserved