গুলির দৃশ্য ধারণই কাল হলো সাংবাদিক মোজাক্কিরের

Image

গুলির দৃশ্য ধারণই কাল হলো সাংবাদিক মোজাক্কিরের

নোয়াখালী সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে শুক্রবার(১৯ ফেব্রুয়ারী)স্থানীয় আ'লীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির খবর সংগ্রহে ছিলেন সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মোজাক্কির। নিজের মোবাইল ফোনে ধরা পড়ে এক পক্ষের গুলির দৃশ্য। তা দেখে গুলিবর্ষণকারী ও তার সহযোগীরা চড়াও হয় মোজাক্কিরের ওপর। তার হাতে থাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয়। ব্যর্থ হয়ে তার ওপর গুলি চালায় সন্ত্রাসীরা। গুলিবিদ্ধ মোজাক্কিরকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে গত শনিবার তাকে ঢাকায় আনা হয়। ওই দিন রাতেই ঢাকা মেডিকেলে তার মৃত্যু হয়। ওদিকে সাংবাদিকের মৃত্যুতে স্থানীয় সাংবাদিকরা গতকাল বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। তারা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করেছেন। গুলির ঘটনার তিনদিন পার হলেও গতকাল এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। গ্রেপ্তার হয়নি কেউ। এতে নিহত সাংবাদিকের পরিবার ও স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। নিহত সাংবাদিক মোজাক্কিরের বড় ভাই নুরুদ্দিন মুহাদ্দিস বলেন, আমার ভাই কোনো রাজনৈতিক কিংবা কোনো দলের অনুসারী ছিল না। সে পড়াশোনা শেষ করে সাংবাদিকতা করতো। তাকে কেন গুলি করে মারা হলো। আমি ভাই হত্যার বিচার চাই। যারা এর সঙ্গে জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক। যাতে আর কোনো সাংবাদিক কিংবা নিরীহ মানুষকে এভাবে মরতে না হয়। অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে মোজাক্কিরের পরিবার। নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, গুলিবিদ্ধ হয়ে সাংবাদিক মোজাক্কির নিহত হওয়ার ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। ঢাকা থেকে তার লাশ গ্রামে আনা হয়েছে। দাফন শেষ হোক। পরে তার পরিবারের কেউ মামলা করলে, মামলা গ্রহণ করা হবে। আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ভিডিও ফুটেজ নিয়ে তিনি বলেন, আমাদের তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না। প্রশাসন মাঠে কাজ করছে। ওই দিনের সংঘর্ষের ঘটনায় এক পক্ষ থানায় মামলা করেছে বলে জানান পুলিশ সুপার। গত ১৯শে ফেব্রুয়ারি কোম্পানীগঞ্জের চরফকিরা ইউনিয়নের চাপরাশীরহাট বাজারে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র ও আ'লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাই আব্দুল কাদের মির্জা ও উপজেলা আ'লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মোজাক্কির গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনার তিনদিনেও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এরইমধ্যে অস্ত্র হাতে একজনের ছবি ভাইরাল হয়েছে। তবে ওই অস্ত্রধারীকে চিহ্নিত করার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।
Advertisement

ফেইসবুক লাইক
অন্যান্য পত্রিকা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ :
Image

নোয়াখালী সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আ'লীগের দু'পক্ষের গোলাগুলিতে বিস্তারিত

Image

কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট বিস্তারিত

Image

নোয়াখালী সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় আ'লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী বিস্তারিত

Image

কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আ'লীগের দুই গ্রুপের বিস্তারিত

Image

নোয়াখালী সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আ'লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে বিস্তারিত

Image

নোয়াখালী সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে চরফকিরা ইউনিয়নে সাংবাদিক বিস্তারিত

Image

কোম্পানীগঞ্জে সংবাদদাতা: কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌর মেয়র কাদের মির্জা ও বিস্তারিত

Image

কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার মেয়র বিস্তারিত







প্রধান সম্পাদক : এস এম ইউসুফ আলী
নির্বাহী সম্পাদক : মোঃ ওমর ফারুক
বার্তা সম্পাদক : এম ডি ফখরুল ইসলাম
তাসলিমা আক্তার লিমু কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।

হাজী শাহ আলম টাওয়ার (৪র্থ তলা), শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার সড়ক, ফেনী।

মোবাইল: ০১৮১২-১৫৯৯৬১, ০১৯১৯-১৫৯৯৬১, ০১৭১১ ৩৪১২৩৫

ই-মেইল : eusufpress@gmail.com, newsfenireport.com

Developed By: SBIT

© fenireport.com Site All Rights Reserved